পরীক্ষায় ‘ফেসবুকের ভাষা’ লিখছে শিক্ষার্থীরা

882
Print Friendly, PDF & Email

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মানুষের ঝুঁকে পড়ার কথা নতুন কিছু নয়। তবে ফেসবুকে অতিরিক্ত আসক্তি যে পরীক্ষার ফলাফলে বিরাট প্রভাব ফেলতে পারে তার একটা বড় উদাহরণ হলো মাল্টা। দেশটির সেকেন্ডারি এডুকেশন সার্টিফিকেট পরীক্ষায় তরুণ শিক্ষার্থীদের খারাপ ফলাফলের জন্য জনপ্রিয় এই সোশ্যাল সাইটকে দায়ী করা হচ্ছে।

মাল্টার গণমাধ্যমের খবর, গত বছরের মে মাসে অনুষ্ঠিত ওই পরীক্ষায় মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রায় ৪ হাজার জনের পারফরম্যান্স বিশ্লেষণে দেখা যায়, পরবর্তী পর্যায়ে উত্তীর্ণ হওয়ার মতো নম্বর দুই-তৃতীয়াংশ শিক্ষার্থী পেয়েছে। তবে শিক্ষার্থীরা পরীক্ষায় যেসব সাধারণ বানান ব্যবহার করে তা উদ্বেগজনক।

কারণ, পরীক্ষায় খাতায় তারা বইয়ে ব্যবহৃত শব্দ বা প্রকৃত বানান না লিখে ফেসবুকে ব্যবহৃত শব্দের বানান লিখে রেখেছে। এটা সবচেয়ে বেশি হয়ে রচনা কিংবা প্রবন্ধ লেখার ক্ষেত্রে। কিছু পরীক্ষার্থী কথ্য ভাষা ও লেখ্য ভাষার মধ্য পার্থক্য নির্ণয় করতে পারেনি। কেউ কেউ ফেসবুক স্ট্যাটাসের মতো গড় সাপটা লেখে গেছে, করেনি বিরামচিহ্নের কোনো ব্যবহার।
শিক্ষার্থীদের এই সমস্যা বুঝতে পেরে খাতা মূল্যায়নে পরীক্ষকরা লিখেছেন, শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেটের প্রভাব থেকে দূরে থাকতে হবে। কারণ, ফেসবুকের ভাষা পরীক্ষায় গ্রহণযোগ্য নয়। সূত্র: টাইমস অব মাল্টা