শর্টকোর্সের রেজিস্ট্রেশন ফি সোনালী সেবা ছাড়াও ডিডি/পে-অর্ডারেও জমা করা যাবে

1,023
Print Friendly, PDF & Email

করোনা সংকটের কারণে শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান সমূহ বন্ধ থাকা এবং দেশের জেলা গুলোতে লক-ডাউনের আশঙ্কায় ব্যাংকে অসহনীয় ভীড় থাকায় যারা বেসিক কোর্স (৩৬০ ঘণ্টা) জানুয়ারি-জুন সেসনের রেজিস্ট্রেশন ফি’র টাকা সোনালী সেবা করতে পারবেন না, তাঁরা পরবর্তীতে রেজিস্ট্রেশন কার্ড আনতে যাবার দিন ডিডি বা পে-অর্ডারের মাধ্যমে জমা দিতে পারবেন।

দেশে বিরাজমান করোনা আতঙ্কের কারণে এবং করোনা বিস্তার ঠেকাতে সতর্কতা হিসেবে বিগত ১৮ মার্চ থেকে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের পাশাপাশি সকল বেসিক কোর্স প্ররিচালনাকারী প্রতিষ্ঠানও বন্ধ হয়ে যায়। ফলে অনেক প্রতিষ্ঠান ঠিক সময়ে রেজিস্টেশন ফিসহ অন্যান্য ফি আদায় করতেসক্ষম হয় নি। পক্ষান্তেরে শহর-বন্ধর লক-ডাউন হওয়ার আশঙ্কায় সবাই এক সাথে ব্যাংক সেবা নিতে হুমড়ি খেয়ে পড়ায় অনেকে ইচ্ছে থাকলেও সোনালী সেবা করতে সক্ষম হননি। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ বেসিক ট্রেড শিক্ষক সমিতি বিষয়টি বিবেচনা করার জন্য মাননীয় চেয়ারম্যান মহোদয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে (২৩ মার্চ মৌখিক এবং ২৪ মার্চ লিখিতভাবে)।

বিষয়টির গুরুত্ব বিবেচনা করে সোনারী সেবার ক্ষেত্রে নিয়মের কড়াকড়ি শিথিল করা হয়, যাঁরা সঠিক সময়ে সোনালী সেবা করতে পারছেন না, তাঁরা রেজিস্ট্রেশন কার্ড নিতে যাওয়ার দিন ডিডি বা পে-অর্ডারের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন ফি’র টাকা জমা দিতে পারবেন (অফিসিয়াল নোটিশ জনবল সংকটের কারণে দিতে বিলম্ব হতে পারে) বিষয়টি বাকাশিবো‘র  উপ-সচিব (রেজিস্ট্রেশন) মি. জাকারীয়া আব্বাসী সাহেব নিশ্চিৎ করেন।