সাতক্ষীরা ০৫:৫৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাজনীতি করতে চাইলে খালেদা জিয়াকে ‘শর্ত মানতে হবে’: কাদের

মো: হেলালুর রহমান জুয়েল
  • আপডেট সময় : ০৮:১৮:১৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ২০৩ বার পঠিত

প্রধানমন্ত্রীর নির্বাহী আদেশে দুর্নীতির দুই মামলায় ১৭ বছরের সাজা স্থগিত হওয়ার পর সাময়িক মুক্তি পাওয়া বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া রাজনীতি করতে চাইলে তাকে দেওয়া ‘শর্ত’ মেনে চলতে হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা ওবায়দুল কাদের। অবশ্য কী সেই ‘শর্ত’ সে বিষয়টি স্পষ্ট করেননি ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক।

সোমবার বিকেলে ঢাকঅয় অমর একুশে বইমেলায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের স্টল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন তিনি। এ সময় বিএনপি নেত্রীর নির্বাচনে অংশ নেওয়া বা সাময়িক মুক্তি পাওয়ার পর গত প্রায় তিন বছর ধরে রাজনীতি থেকে দূরে থাকার প্রসঙ্গ আসে। ওবায়দুল কাদেরের কাছে প্রশ্ন ছিল, খালেদা জিয়া নির্বাচন করতে পারবেন কি না।

জবাবে কাদের বলেন, “বেগম জিয়ার কারাদণ্ড আছে। এই অবস্থানটা তার নির্বাচন করার পক্ষে নয়। তিনি নির্বাচন করার জন্য যোগ্য না।’ ২০১৮ সালের একাদশ সংসদ নির্বাচনে খালেদা জিয়ার পক্ষে ফেনী-১ ও বগুড়া-৬ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়া হয়। তবে সাজার কারণে দুটোই বাতিল হয়ে যায়। উচ্চ আদালতে গিয়েও নিজের পক্ষে আদেশ আনতে পারেননি তিনি। ফলে ভোটে দাঁড়ানো হয়নি। বিএনপি নেত্রীর রাজনীতিতে ‘ফেরার’ প্রসঙ্গে কাদের বলেন, “তিনি বিএনপির নেতা হিসেবে যদি রাজনীতি করতে চান, সেক্ষেত্রে যে শর্তে তাকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে, সেটি মেনে তাকে করতে হবে। নো ওয়ে।”

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় ২০০৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি পাঁচ বছরের কারাদণ্ড হয় খালেদা জিয়ার। সেদিনই কারাবন্দি হন তিনি। বিএনপি এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে। ওই বছরের ৩০ অক্টোবর উচ্চ আদালত সাজা বাড়িয়ে ১০ বছর করে। তার আগে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় বিএনপি নেত্রীর সাত বছরের সাজা হয়।

ট্যাগস :

রাজনীতি করতে চাইলে খালেদা জিয়াকে ‘শর্ত মানতে হবে’: কাদের

আপডেট সময় : ০৮:১৮:১৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

প্রধানমন্ত্রীর নির্বাহী আদেশে দুর্নীতির দুই মামলায় ১৭ বছরের সাজা স্থগিত হওয়ার পর সাময়িক মুক্তি পাওয়া বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া রাজনীতি করতে চাইলে তাকে দেওয়া ‘শর্ত’ মেনে চলতে হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা ওবায়দুল কাদের। অবশ্য কী সেই ‘শর্ত’ সে বিষয়টি স্পষ্ট করেননি ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক।

সোমবার বিকেলে ঢাকঅয় অমর একুশে বইমেলায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের স্টল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন তিনি। এ সময় বিএনপি নেত্রীর নির্বাচনে অংশ নেওয়া বা সাময়িক মুক্তি পাওয়ার পর গত প্রায় তিন বছর ধরে রাজনীতি থেকে দূরে থাকার প্রসঙ্গ আসে। ওবায়দুল কাদেরের কাছে প্রশ্ন ছিল, খালেদা জিয়া নির্বাচন করতে পারবেন কি না।

জবাবে কাদের বলেন, “বেগম জিয়ার কারাদণ্ড আছে। এই অবস্থানটা তার নির্বাচন করার পক্ষে নয়। তিনি নির্বাচন করার জন্য যোগ্য না।’ ২০১৮ সালের একাদশ সংসদ নির্বাচনে খালেদা জিয়ার পক্ষে ফেনী-১ ও বগুড়া-৬ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়া হয়। তবে সাজার কারণে দুটোই বাতিল হয়ে যায়। উচ্চ আদালতে গিয়েও নিজের পক্ষে আদেশ আনতে পারেননি তিনি। ফলে ভোটে দাঁড়ানো হয়নি। বিএনপি নেত্রীর রাজনীতিতে ‘ফেরার’ প্রসঙ্গে কাদের বলেন, “তিনি বিএনপির নেতা হিসেবে যদি রাজনীতি করতে চান, সেক্ষেত্রে যে শর্তে তাকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে, সেটি মেনে তাকে করতে হবে। নো ওয়ে।”

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় ২০০৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি পাঁচ বছরের কারাদণ্ড হয় খালেদা জিয়ার। সেদিনই কারাবন্দি হন তিনি। বিএনপি এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে। ওই বছরের ৩০ অক্টোবর উচ্চ আদালত সাজা বাড়িয়ে ১০ বছর করে। তার আগে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় বিএনপি নেত্রীর সাত বছরের সাজা হয়।