দেশের প্রথম সোশ্যাল মিডিয়া ও লাইফস্টাইল অ্যাপ ‘কথা’

328
Print Friendly, PDF & Email

সোশ্যাল মিডিয়া ও লাইফস্টাইলের সকল সুবিধা নিয়ে দেশের তৈরি প্রথম অ্যাপ ‘কথা’ (www.kotha.app)। অনলাইনে চ্যাটিং, কেনাকাটা, ডিজিটাল লেনদেন,  মোবাইল রিচার্জ, বিনোদনসহ বেশ কয়েটি সুবিধা রয়েছে এ অ্যাপে।

১২ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর জনতা টেকনোলজি পার্কের সেমিনার হলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে অ্যাপটি আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মুক্ত করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, দেশীয় ডেভেলপারদের ডেভেলপ করা অ্যাপটি ভাষার মাসে আমাদের আরও একটি নতুন সংযোজন। আমাদের দেশে ১০ কোটি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী রয়েছে। যারা এতদিন বিদেশি সোশ্যাল মিডিয়া নির্ভর ছিল। আজ থেকে দেশের তৈরি নতুন প্লাটফর্মে তারা যুক্ত হতে পারবে। কথা টিমের তরুণ ও টেকনোলজিতে দক্ষ প্রত্যেকেই বাংলাদেশি।

তিনি আরও বলেন, খনিজ সম্পদের মতো এই প্ল্যাটফর্মের ডাটা অ্যানালাইসিস করে সম্পদে রূপান্তরিত করা সম্ভব। শুধু তাই নয়, এ তথ্য আর বিদেশিদের হাতে যাবে না। বিদেশি প্লাটফর্মের মাধ্যমে আমাদের সকল তথ্য অন্যদের হাতে চলে যাচ্ছে। দেশীয় প্লাটফর্মের মাধ্যমে আমাদের তথ্য আমাদের কাছের রাখতে পারি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ‘কথা’ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হয়। এরই মধ্যে অ্যাপটি ডাউনলোড হয়েছে প্রায় ২৭ হাজার বার। এক সঙ্গে অনেকগুলো সুবিধা থাকাতে একই প্লাটফর্মে ব্যবহাকারীরা পাবে খেলাধুলা, গ্রোসারি পণ্য ক্রয়, খাবার অর্ডার, পেমেন্ট, অনলাইনভিত্তিক ব্যবসার সুবিধা। এ ছাড়াও ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপের মতোও ব্যবহার করা যাবে অ্যাপটি। ব্যবহারকারী, বিশেষ করে তরুণদের লাইফ স্টাইলের পছন্দ-অপছন্দের বিষয়গুলো জেনে সে অনুযায়ী সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করতে পারবে প্লাটফর্মে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো। অ্যাপটি বাংলা ভাষাভাষীদের জীবনে মূল্যবান প্রভাব ফেলবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন কথা অ্যাপের কো-ফাউন্ডার ও চেয়ারম্যান মাহবুব জামান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাশফিন দেলোয়ার, চিফ টেকনোলজি অফিসার আতাউল মুকিত, চিফ কো-অর্ডিনেটিং অফিসার আহমেদ আনোয়ার হাসান, চিফ মার্কেটিং অফিসার মোহাইমিন মোস্তফাসহ গণমাধ্যম কর্মীরা।

অনুষ্ঠানে মাহবুব জামান বলেন, বাংলাদেশে তৈরি বাংলাদেশের জন্য বাংলাদেশের সোশ্যাল এবং লাইফস্টাইল অ্যাপ।

এবং তাশফিন দেলোয়ার বলেন, ‘এক “কথা”য় সব হয় – এটা করাই কথার মূল লক্ষ্য এবং সেই লক্ষ্যেই কাজ চলছে যাতে সকালে ঘুম থেকে উঠার পর থেকে ঘুমোতে যাওয়া পর্যন্ত আমাদের ব্যবহারকারীরা যে সমস্ত ডিজিটাল সার্ভিসেস দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহার করে থাকে, সেগুলোকে একত্র করে কথার মাধ্যমে উপহার দেবার।

এছাড়াও মোহাইমিন মোস্তফা বলেন, কথা নিয়ে আসছে বিজনেস একাউন্ট এবং কে-কমার্স যা SME এবং নারী উদ্যোক্তাদের জন্য অনেক সুফল বয়ে আনবে, এছাড়া কথা কনটেন্টক্রিয়েটরদের জন্য প্লাটফর্ম তৈরি করে দিচ্ছে যা থেকে তারা সহজে উপার্জন করতে পারবে।’