সাতক্ষীরা ০৯:৩৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

খুলনায় জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে বিটিএসডি ফোরামের প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ

পিসিবার্তা ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০৯:২৭:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪ ১২০ বার পঠিত

এনএসডিএ’কে তথাকথিত ‘সনদায়ন কর্তৃপক্ষ’ করার স্থলে, জাপান-কোরিয়া-আমেরিকা-ভারত ইত্যাদি দেশের মতো এবং আমাদের দেশের ‘বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন’ এর মতো একটি ‘এপেক্স বডি’ হিসেবে দেশের সকল কারিগরি প্রতিষ্ঠান সমূহের কর্মকাণ্ড তত্ত্বাবধান, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ণের দায়িত্ব দেয়া হোক।

আজ ২৪ এপ্রিল ২০২৪, বুধবার সকাল ১০ টায় সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক অফিস চত্বরে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড অনুমোদিত বেসিক ট্রেড পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান সমূহের জাতীয় সংগঠন, বেসিক ট্রেড স্কীল ডেভেলপমেন্ট ফোরাম (বিটিএসডি ফোরাম), খুলনা এক মানববন্ধন, সমাবেশ ও স্মারলিপি প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সংগঠনের জেলা আহ্বায়ক মোঃ মাসুদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন বিটিএসডি ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বায়ক নিত্যানন্দ সরকার।
সমাবেশ থেকে শর্টকোর্সের অনুমোদন বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে অব্যহত রাখার জোর দাবী করা হয়। বিটিএসডি ফোরাম, সাতক্ষীরা আয়োজিত সবাবেশে বক্তব্য রাখেন, এশিয়া টেকনিক্যালের পরিচালক সাইফুল ইসলাম, ব্রিকস কম্পিউটারের পরিচালক অহেদুল ইসলাম, এনটিসি ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির পরিচালক নয়ন দত্ত, এশিয়াটিক টিটিসি’র মশিউর রহমান, কাউখালী কম্পিউটারের পরিচালক পনিরুজ্জামান প্রমূখ

পরিচালক ও নেতৃবৃন্দ।
সংগঠনের সদস্য সচিব কয়রা কম্পিউটারের পরিচালক এম রাকিব হাসান পরিচালিত সভায় নেতৃবৃন্দ গভীর উদ্বেগ জানিয়ে বলেন, জাতীয় দক্ষতা মান বেসিক কোর্সটি কারিগরি বোর্ড থেকে অনুমোদন বাতিল করা হলে, স্ব-অর্থায়নে প্রতিষ্ঠিত বেসিক কোর্স প্রতিষ্ঠানগুলো সম্পূর্ণ ধ্বংস হয়ে যাবে। সরকারের ভিশন ও কারিগরি শিক্ষায় এনরোলমেন্ট ২০৩০ সালের মধ্যে ৩০% এবং ২০৪১ সালের মধ্যে ৫০% করার লক্ষমাত্রা অর্জন চরমভাবে বাধাগ্রস্থ হবে।
বিশ্বব্যাংক ও আইএলও’র অর্থায়নে a2i পরিচালিত দক্ষতা প্রশিক্ষণ যা বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের শর্টকোর্স অনুমোদন স্বাপেক্ষে আরটিও (RTO) প্রতিষ্ঠান এবং এনটিভিকিউএফ (NTVQF) প্রকল্প; ফলে শর্টকোর্স প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হলে দক্ষতার সনদায়নের দীর্ঘ্য সূত্রিতা ও অনিশ্চায়তার কারণে দাতা সংস্থাসমূহ আমাদের দেশ হতে হাত গুটিয়ে নিতে পারে।
সমাবেশ শেষে একটি প্রতিনিধিদল জেলা প্রশাসকের হাতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি হস্তান্তর করে। পরে দুপুর ১২ টায় খুলনা প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিটিএসডি ফোরাম কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক নিত্যানন্দ সরকার উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, এনএসডিএ’কে তথাকথিত ‘সনদায়ন কর্তৃপক্ষ’ করার পরিবর্তে, জাপান-কোরিয়া-আমেরিকা-ভারত ইত্যাদি দেশের মতো এবং আমাদের দেশের ‘বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন’ এর মতো একটি ‘এপেক্স বডি’ হিসেবে দেশের সকল কারিগরি প্রতিষ্ঠান সমূহের কর্মকাণ্ড তত্ত্বাবধান, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ণের দায়িত্ব দেয়া হোক।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

খুলনায় জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে বিটিএসডি ফোরামের প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ

আপডেট সময় : ০৯:২৭:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪

এনএসডিএ’কে তথাকথিত ‘সনদায়ন কর্তৃপক্ষ’ করার স্থলে, জাপান-কোরিয়া-আমেরিকা-ভারত ইত্যাদি দেশের মতো এবং আমাদের দেশের ‘বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন’ এর মতো একটি ‘এপেক্স বডি’ হিসেবে দেশের সকল কারিগরি প্রতিষ্ঠান সমূহের কর্মকাণ্ড তত্ত্বাবধান, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ণের দায়িত্ব দেয়া হোক।

আজ ২৪ এপ্রিল ২০২৪, বুধবার সকাল ১০ টায় সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক অফিস চত্বরে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড অনুমোদিত বেসিক ট্রেড পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান সমূহের জাতীয় সংগঠন, বেসিক ট্রেড স্কীল ডেভেলপমেন্ট ফোরাম (বিটিএসডি ফোরাম), খুলনা এক মানববন্ধন, সমাবেশ ও স্মারলিপি প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সংগঠনের জেলা আহ্বায়ক মোঃ মাসুদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন বিটিএসডি ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বায়ক নিত্যানন্দ সরকার।
সমাবেশ থেকে শর্টকোর্সের অনুমোদন বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে অব্যহত রাখার জোর দাবী করা হয়। বিটিএসডি ফোরাম, সাতক্ষীরা আয়োজিত সবাবেশে বক্তব্য রাখেন, এশিয়া টেকনিক্যালের পরিচালক সাইফুল ইসলাম, ব্রিকস কম্পিউটারের পরিচালক অহেদুল ইসলাম, এনটিসি ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির পরিচালক নয়ন দত্ত, এশিয়াটিক টিটিসি’র মশিউর রহমান, কাউখালী কম্পিউটারের পরিচালক পনিরুজ্জামান প্রমূখ

পরিচালক ও নেতৃবৃন্দ।
সংগঠনের সদস্য সচিব কয়রা কম্পিউটারের পরিচালক এম রাকিব হাসান পরিচালিত সভায় নেতৃবৃন্দ গভীর উদ্বেগ জানিয়ে বলেন, জাতীয় দক্ষতা মান বেসিক কোর্সটি কারিগরি বোর্ড থেকে অনুমোদন বাতিল করা হলে, স্ব-অর্থায়নে প্রতিষ্ঠিত বেসিক কোর্স প্রতিষ্ঠানগুলো সম্পূর্ণ ধ্বংস হয়ে যাবে। সরকারের ভিশন ও কারিগরি শিক্ষায় এনরোলমেন্ট ২০৩০ সালের মধ্যে ৩০% এবং ২০৪১ সালের মধ্যে ৫০% করার লক্ষমাত্রা অর্জন চরমভাবে বাধাগ্রস্থ হবে।
বিশ্বব্যাংক ও আইএলও’র অর্থায়নে a2i পরিচালিত দক্ষতা প্রশিক্ষণ যা বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের শর্টকোর্স অনুমোদন স্বাপেক্ষে আরটিও (RTO) প্রতিষ্ঠান এবং এনটিভিকিউএফ (NTVQF) প্রকল্প; ফলে শর্টকোর্স প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হলে দক্ষতার সনদায়নের দীর্ঘ্য সূত্রিতা ও অনিশ্চায়তার কারণে দাতা সংস্থাসমূহ আমাদের দেশ হতে হাত গুটিয়ে নিতে পারে।
সমাবেশ শেষে একটি প্রতিনিধিদল জেলা প্রশাসকের হাতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি হস্তান্তর করে। পরে দুপুর ১২ টায় খুলনা প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিটিএসডি ফোরাম কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক নিত্যানন্দ সরকার উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, এনএসডিএ’কে তথাকথিত ‘সনদায়ন কর্তৃপক্ষ’ করার পরিবর্তে, জাপান-কোরিয়া-আমেরিকা-ভারত ইত্যাদি দেশের মতো এবং আমাদের দেশের ‘বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন’ এর মতো একটি ‘এপেক্স বডি’ হিসেবে দেশের সকল কারিগরি প্রতিষ্ঠান সমূহের কর্মকাণ্ড তত্ত্বাবধান, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ণের দায়িত্ব দেয়া হোক।