সাতক্ষীরা ১১:৪০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ফুল না দেওয়ায় ইউএনওর সামনে শিক্ষককে মারধরের অভিযোগ টানা তৃতীয় মেয়াদে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভয়েস অব আমেরিকার সংবাদ কণ্ঠ দিলারা হাসেম আসামের কামরূপ এবং মেঘালয়ের চেরাপুঞ্জী ভ্রমণ বিদ্যুতের প্রিপেইড মিটারে বাড়তি চার্জ : প্রতিকার চেয়ে হাইকোর্টে রিট স্মার্ট বাংলাদেশে মাথাপিছু আয় হবে ১২,৫০০ ডলার : সংসদে অর্থমন্ত্রী স্থায়ীভাবে বন্ধ হয়ে যেতে পারে বেসরকারি নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিও করণ খাতে বরাদ্দ! সাবেক পুলিশ প্রধান বেনজিরের স্পেনে সেকেন্ড হোম, তুরস্কে নাগরিকত্ব সাতক্ষারা সরকারি কলেজ রোড পুনঃনির্মাণের দাবীতে নাগরিক কমিটির সড়ক অবরোধ সাতক্ষীরার শিক্ষাকাশের উজ্জ্বল জ্যোতিষ্ক আব্দুল মোতালেব

কিশোরী বয়সে গর্ভধারণ কেন ঝুঁকিপূর্ণ?

পিসিবার্তা ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : ০৬:১৪:২৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ এপ্রিল ২০২৩ ২৪৭ বার পঠিত

বিশ্বের দেশে প্রতি ৫ জন শিশুর মধ্যে ১ জন জন্ম নেয় কিশোরী মাতার গর্ভে। এ বয়সি কিশোরী শারীরিক ও মানসিকভাবে মাতৃত্বের দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত নয়। যখন একজন কিশোরী মা হয় তখন এর প্রভাব পড়ে শরীর, আবেগ, সামাজিক জীবনের ওপর। এর জটিলতা হিসাবে মায়ের উচ্চ রক্তচাপ, সময়ের আগে জন্ম নেওয়া শিশু, অল্প ওজনের শিশু, যৌনরোগ দেখা দিতে পারে।

* কারণ ও প্রতিকারের উপায়

পরিসংখ্যান বলে যে ৯৫ শতাংশ কিশোরীর গর্ভধারণ স্বল্প-আয়ের এবং উন্নয়নশীল দেশগুলোতে দেখা যায়। বাল্যবিবাহ, দারিদ্র্য, অপর্যাপ্ত শিক্ষা এবং কর্মসংস্থানের অভাব, লিঙ্গ বৈষম্য, গ্রামীণ বাসস্থান, গর্ভনিরোধক কম ব্যবহার করা এবং অপর্যাপ্ত যৌন ও প্রজনন স্বাস্থ্য (SRH)-এগুলো কিশোরী গর্ভধারণে অবদান রাখে। উন্নত দেশের জন্য পর্নোগ্রাফি এবং বিবাহপূর্ব যৌন আচরণ কিশোরী গর্ভধারণের বড় কারণ।

সমাজে কিশোরী গর্ভধারণ প্রতিরোধের জন্য প্রতিক্রিয়াশীল এবং সক্রিয় জৈব-সামাজিক কৌশলগুলো বাস্তবায়ন করা প্রয়োজন।

অভিভাবকদের সম্পৃক্ততা (PI) টিন প্রেগন্যান্সি প্রিভেনশন (টিপিপি) এ অপরিহার্য বলে বিবেচিত হয়, যার মধ্যে রয়েছে বড় মাপের কৌশল যেমন টিপিপি জাতীয়ভাবে পালন বা মিডিয়া প্রচারণা; পিতামাতার-সন্তান সম্পর্ক, স্কুল, ক্লিনিক, চাকরি এবং বাড়ি-ভিত্তিক শিক্ষা এবং পরিবারের জন্য বাড়িতে ব্যবহার করার জন্য ভিডিও বা লিখিত উপকরণ বিতরণ। বিয়ের আগে চাপ ব্যবস্থাপনা (MPM), আরেকটি যৌন শিক্ষা যা পিতামাতা ও সন্তানদের জন্য ঘরোয়া সমাধান। কিছু স্বতন্ত্র অভিভাবকদের সম্পৃক্ততা যেমন পিতামাতা-সন্তানদের কন্ডম ব্যবহারের কারণ ও উপকার সংক্রান্ত আলোচনা ও ভালো ফলাফল দেয়। এটি প্রমাণিত হয়েছে যে উদ্যোগ পারিবারিক কার্যকারিতা উন্নত করে এবং অনিরাপদ যৌনতার ঘটনা হ্রাস করে। কিশোরী গর্ভধারণ এবং এসটিআই প্রতিরোধের জন্য যৌনাচার বর্জন শিক্ষা কার্যক্রম হলো সবচেয়ে কার্যকরী এবং স্বাস্থ্য-উন্নয়নকারী উপায়। যৌন শিক্ষার একটি ব্যাপক উদ্যোগ হলো আজকের কিশোর/কিশোরীদের জ্ঞান এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণের দক্ষতা অর্জন যা তাদের যৌন জীবনের সঙ্গে জড়িত বিষয় সম্পর্কে বাস্তবসম্মত ধারণা দেয়। উদ্যোগটি যুবকদের যৌনবিরত থাকার বিষয়ে সচেতন সিদ্ধান্ত নিতে সক্ষম করে তোলে, তাদের সম্পর্কের সীমানা এবং চাপ পপ্রতিরোধ করার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহ করে এবং তাদের গর্ভনিরোধক ব্যবহার এবং যৌন সংক্রামিত রোগ প্রতিরোধ সম্পর্কে অবহিত করে। কিশোরী গর্ভধারণ প্রতিরোধ একটি সম্মিলিত দায়িত্ব এবং চিন্তা যার দীর্ঘমেয়াদি সমাধান এবং সুস্থ জীবনের জন্য সমাজের প্রতিটি সদস্যের অংশগ্রহণের প্রয়োজন।

* উপসংহার

কিশোরী গর্ভধারণ প্রতিটি সমাজের একটি প্রধান মহামারি ও জনস্বাস্থ্য সমস্যা। ব্যক্তি, পরিবার এবং সমাজের সবারই জৈবিক, মনস্তাত্ত্বিক এবং সামাজিক উদ্যোগ রয়েছে যা তাদের সমাজের প্রতিক্রিয়াশীল এবং সক্রিয়ভাবে কিশোর গর্ভাবস্থা প্রতিরোধে অবদান রাখে।

লেখক : কনসালটেন্ট, ফ্যামিলি মেডিসিন, ইংল্যান্ড

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

কিশোরী বয়সে গর্ভধারণ কেন ঝুঁকিপূর্ণ?

আপডেট সময় : ০৬:১৪:২৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ এপ্রিল ২০২৩

বিশ্বের দেশে প্রতি ৫ জন শিশুর মধ্যে ১ জন জন্ম নেয় কিশোরী মাতার গর্ভে। এ বয়সি কিশোরী শারীরিক ও মানসিকভাবে মাতৃত্বের দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত নয়। যখন একজন কিশোরী মা হয় তখন এর প্রভাব পড়ে শরীর, আবেগ, সামাজিক জীবনের ওপর। এর জটিলতা হিসাবে মায়ের উচ্চ রক্তচাপ, সময়ের আগে জন্ম নেওয়া শিশু, অল্প ওজনের শিশু, যৌনরোগ দেখা দিতে পারে।

* কারণ ও প্রতিকারের উপায়

পরিসংখ্যান বলে যে ৯৫ শতাংশ কিশোরীর গর্ভধারণ স্বল্প-আয়ের এবং উন্নয়নশীল দেশগুলোতে দেখা যায়। বাল্যবিবাহ, দারিদ্র্য, অপর্যাপ্ত শিক্ষা এবং কর্মসংস্থানের অভাব, লিঙ্গ বৈষম্য, গ্রামীণ বাসস্থান, গর্ভনিরোধক কম ব্যবহার করা এবং অপর্যাপ্ত যৌন ও প্রজনন স্বাস্থ্য (SRH)-এগুলো কিশোরী গর্ভধারণে অবদান রাখে। উন্নত দেশের জন্য পর্নোগ্রাফি এবং বিবাহপূর্ব যৌন আচরণ কিশোরী গর্ভধারণের বড় কারণ।

সমাজে কিশোরী গর্ভধারণ প্রতিরোধের জন্য প্রতিক্রিয়াশীল এবং সক্রিয় জৈব-সামাজিক কৌশলগুলো বাস্তবায়ন করা প্রয়োজন।

অভিভাবকদের সম্পৃক্ততা (PI) টিন প্রেগন্যান্সি প্রিভেনশন (টিপিপি) এ অপরিহার্য বলে বিবেচিত হয়, যার মধ্যে রয়েছে বড় মাপের কৌশল যেমন টিপিপি জাতীয়ভাবে পালন বা মিডিয়া প্রচারণা; পিতামাতার-সন্তান সম্পর্ক, স্কুল, ক্লিনিক, চাকরি এবং বাড়ি-ভিত্তিক শিক্ষা এবং পরিবারের জন্য বাড়িতে ব্যবহার করার জন্য ভিডিও বা লিখিত উপকরণ বিতরণ। বিয়ের আগে চাপ ব্যবস্থাপনা (MPM), আরেকটি যৌন শিক্ষা যা পিতামাতা ও সন্তানদের জন্য ঘরোয়া সমাধান। কিছু স্বতন্ত্র অভিভাবকদের সম্পৃক্ততা যেমন পিতামাতা-সন্তানদের কন্ডম ব্যবহারের কারণ ও উপকার সংক্রান্ত আলোচনা ও ভালো ফলাফল দেয়। এটি প্রমাণিত হয়েছে যে উদ্যোগ পারিবারিক কার্যকারিতা উন্নত করে এবং অনিরাপদ যৌনতার ঘটনা হ্রাস করে। কিশোরী গর্ভধারণ এবং এসটিআই প্রতিরোধের জন্য যৌনাচার বর্জন শিক্ষা কার্যক্রম হলো সবচেয়ে কার্যকরী এবং স্বাস্থ্য-উন্নয়নকারী উপায়। যৌন শিক্ষার একটি ব্যাপক উদ্যোগ হলো আজকের কিশোর/কিশোরীদের জ্ঞান এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণের দক্ষতা অর্জন যা তাদের যৌন জীবনের সঙ্গে জড়িত বিষয় সম্পর্কে বাস্তবসম্মত ধারণা দেয়। উদ্যোগটি যুবকদের যৌনবিরত থাকার বিষয়ে সচেতন সিদ্ধান্ত নিতে সক্ষম করে তোলে, তাদের সম্পর্কের সীমানা এবং চাপ পপ্রতিরোধ করার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহ করে এবং তাদের গর্ভনিরোধক ব্যবহার এবং যৌন সংক্রামিত রোগ প্রতিরোধ সম্পর্কে অবহিত করে। কিশোরী গর্ভধারণ প্রতিরোধ একটি সম্মিলিত দায়িত্ব এবং চিন্তা যার দীর্ঘমেয়াদি সমাধান এবং সুস্থ জীবনের জন্য সমাজের প্রতিটি সদস্যের অংশগ্রহণের প্রয়োজন।

* উপসংহার

কিশোরী গর্ভধারণ প্রতিটি সমাজের একটি প্রধান মহামারি ও জনস্বাস্থ্য সমস্যা। ব্যক্তি, পরিবার এবং সমাজের সবারই জৈবিক, মনস্তাত্ত্বিক এবং সামাজিক উদ্যোগ রয়েছে যা তাদের সমাজের প্রতিক্রিয়াশীল এবং সক্রিয়ভাবে কিশোর গর্ভাবস্থা প্রতিরোধে অবদান রাখে।

লেখক : কনসালটেন্ট, ফ্যামিলি মেডিসিন, ইংল্যান্ড